মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৪:৪৬ অপরাহ্ন

চীনের উইঘুর নিপিরণ নিয়ে এইচ আরডব্লিউর প্রতিবেদনে যা রয়েছে
Reporter Name
Update : মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১

সত্যখবর ডেস্ক । ২১ এপ্রিল ২০২১ ।

চীনের উইঘুর অন্যান্য তুর্কিক মুসলমানদের বিরুদ্ধে ভয়াবহ নিপীড়নের ঘটনাকে মানবতাবিরোধী অপরাধ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)জিনজিয়ান অঞ্চলের পুনঃশিক্ষণ শিবির নামে সংখ্যালঘু ১০ লাখের বেশি উইঘুর নারী-পুরুষকে বন্দি করে ব্যাপক নির্যাতন নিয়ে নিউইয়র্কভিত্তিক সংস্থাটি ৫৩ পৃষ্ঠার একটি প্রতিবেদন বের করেছে

 

সোমবার প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়. উইঘুর অন্যান্য তুর্কিভাষী মুসলমানদের গুম. নজরদারি. পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করে থাকা. জোর করে কাজ করানো. যৌন হয়রানি সন্তান ধারণের অধিকার থেকে বঞ্চিত করাসহ নানা নিপীড়নের শিকার হতে হচ্ছেপ্রতিবেদন মতে. অন্তত ১০ লাখ মানুষকে ৩০০ থেকে ৪০০ বন্দি শিবিরে রাখা হয়েছে

 

সেসব মা-বাবাকে এসব শিবিরে রাখা হয়েছে তাদের শিশুদের অনেককে সরকারি প্রতিষ্ঠানে নেওয়া হয়েছেএইচআরডব্লিউর চীন পরিচালক সোফি রিচার্ডসন এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন. পরিষ্কার ভাষায় যদি বলি. মানবতাবিরোধী অপরাধের মতো গুরুতর অপরাধ করা হয়েছে বেসামরিক লোকদের ওপরতাদের ওপর ধারাবাহিক বিস্তৃত আক্রমণের অংশ হিসেবে এটি করা হয়েছেআন্তর্জাতিক আইনের বিবেচনায় এগুলো মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন

 

আন্তর্জাতিক আইনের মাপকাঠিতে জিনজিয়াংয়ে চীন সরকারের গণহত্যার অভিপ্রায় ছিল কি না. তা প্রমাণের জন্য পর্যাপ্ত তথ্য সংস্থাটির গবেষণায় নেই বলে প্রতিবেদনে বিষয়ে কিছু বলা হয়নিতবে. যুক্তরাষ্ট্র. কানাডার পার্লামেন্ট. বেলজিয়াম নেদারল্যান্ড এবং অন্যান্য মানবাধিকার সংস্থা ইতোমধ্যে জিনজিয়াংয়ে বেইজিংয়ের কর্মকাণ্ডকে গণহত্যা বলে অভিহিত করেছে

 

যুক্তরাষ্ট্র. যুক্তরাজ্য. ইউরোপীয় ইউনিয়ন কানাডাসহ বেশ কয়েকটি দেশ বিষয়ে চীনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেবিভিন্ন মানবাধিকার গোষ্ঠী প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন. জিনজিয়াংয়ে ১০ লাখ উইঘুরসহ অন্যান্য তুর্কিক মুসলমানকে বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের নামে আটক করে ভয়াবহ নির্যাতন করা হচ্ছে

 

তাদের জবরদস্তিমূলক মগজধোলাই হরমোন পরিবর্তন করে সংখ্যাগরিষ্ঠ হানদের সমজাতীয় করা হচ্ছেমানবাধিকার সংগঠনগুলোর অভিযোগ. চীন সরকার ধীরে ধীরে উইঘুরদের ধর্মীয়সহ অন্যান্য স্বাধীনতা কেড়ে নিচ্ছে

 

জিনজিয়ানের শিবিরে উইঘুর নর-নারীকে সবসময় কড়া নজরদারির মধ্যে রাখা হয়শিবিরে তাদের ওপর নানা নির্যাতন-নিপীড়ন চালানো হয়সেখানে তাদের প্রজনন ক্ষমতা কেড়ে নেওয়া হচ্ছে।  জোর করে তাদের বিশেষ মতবাদ শেখানো হচ্ছে

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ সংবাদ
copyright protected
%d bloggers like this: