সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ১২:২৬ পূর্বাহ্ন

ভেজাল মধু সরবরাহের অভিযোগ তুলে মাথার চুল কেটে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে দুই ভাইকে নির্যাতন
ফয়সাল ইকবল
Update : সোমবার, ১৪ জুন ২০২১

সত্যখবর ডেস্ক।৩০ এপিল ২০২১ ।

পাবনার ঈশ্বরদীতে ভেজাল মধু সরবরাহের অপবাদে মাথার চুল কেটে দুই ভাইকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল দুপুরে সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়া নুরজাহান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।নির্যাতনের শিকার দাশুড়িয়া ইউনিয়নের দাঁদপুর গ্রামের আলম সরদারের দুই ছেলে আল আমিন (২৪) আলাল সরদার (১৮)।পারিবারিক ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ভিলেজ ফ্রেশ ফুড অ্যান্ড এগ্রো কোম্পানিতে ভেজাল মধু সরবরাহের অপবাদে সকাল থেকে আল আমিন ও আলালকে প্রখর রোদে

 

বিদ্যুতের খাম্বার সঙ্গে বেঁধে রাখে কর্মচারীরা। পরে দুপুর দুইটার দিকে ওই প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী জিসান হোসেন এসে তাদের ব্যাপক মারধর করে মাথার চুল কেটে দেয়।এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজনের প্রতিবাদের মুখে জিসান তাদের ছেড়ে দেয়।শুক্রবার দুপুরে মারধরের ব্যাপারটি স্বীকার করে জিসান হোসেন জানান, তার প্রতিষ্ঠান মধুসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বাজারজাত করে। এ প্রতিষ্ঠানে পাইকারি খাটি মধু সরবরাহের জন্য প্রায় এক বছর আগে চুক্তিবদ্ধ হন আল আমিন ও আলাল। প্রথমে খাঁটি মধু সরবরাহ করলেও কিছুদিন পর

 

থেকেই ভেজাল মধু সরবরাহ করতে থাকেন। গ্রাহকরা এ ভেজাল মধুর বিষয়ে অভিযোগ দিতে থাকেন। বিষয়টি তাদের জানালে নানা তালবাহানা করতে থাকেন।তিনি জানান, পরবর্তিতে ভালো মধু দেওয়ার কথা বলে আবারো ভেজাল মধু দেন। তারা প্রায় ৩০০ কেজি মধু সরবরাহ করেছেন। এরমধ্যে ভেজালের কারণে ১২০ কেজি মধু এখনও অবিকৃত রয়েছে। বৃহস্পতিবার আবারো ভেজাল মধু সরবরাহের জন্য এলে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে এলাকার লোকজন এসে দুজনকে আটকে রেখে উত্তম মধ্যম দিয়ে

 

উপজেলা ইউএনও কে বিষয়টি অবহিত করেন।তিনি আরও জানান, বিকালে আলামিন ও আলালের পরিবারসহ এলাকার গণ্যমান্য লোকজন এসে ভেজাল মধুর ক্ষতিপূরণ ও জনসম্মুখে দুজনকে চর-ধাপ্পড় দিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করেছেন।নির্যাতিত দুই সহোদরের বাবা আলম সরদার বলেন, ‘তারা আমার ছেলেদের মিথ্যা অপবাদ দিয়ে অন্যায়ভাবে

 

মেরেছে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।এ বিষয়ে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান আসাদের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দুই যুবক নির্যাতনের খবর এক সাংবাদিকের কাছে জানতে পারি। এ বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ সংবাদ
copyright protected
%d bloggers like this: