রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ১১:২৯ অপরাহ্ন

ছাত্রলীগ নেতাসহ ৫ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন কিশোর গ্যাংলিডার
ফয়সাল ইকবল
Update : রবিবার, ১৩ জুন ২০২১

সত্যখবর ডেস্ক । ২০ মে ২০২১ ।

বরগুনার আমতলী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী রাহাত মৃধা ও অপর এক ছাত্রলীগ নেতাসহ ৫ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন কিশোর গ্যাংলিডার শাহাবুদ্দিন শিহাব ও তার সহযোগীরা। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র যানা যায়, গত সোমবার আমতলী সরকারি ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী রাহাত মৃধা ও তার বন্ধু বেলাল হোসেন বাপ্পির সাথে কিশোর গ্যাং সদস্য ইমরান মোল্লার তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে বিরোধ হয়।

 

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে ওই বিরোধ মীমাংসার জন্য আমতলী পৌরসভার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে বসে বন্ধু বেল্লালের পক্ষ হয়ে রাহাত মৃধা কিশোর গ্যাং সদস্য ইমরানকে ফোন দেন। ইমরানের কাছ থেকে কিশোর গ্যাং লিডার শাহাবুদ্দিন শিহাব ফোন কেড়ে নিয়ে রাহাতকে হাত কেটে নেয়ার হুমকি প্রদান করে। ওই রাতেই বিষয়টি জেনে ছাত্রলীগ নেতা রাহাতের মামা সেলিম তাৎক্ষণিক মীমাংসার জন্য তাদেরকে (রাহাত মৃধা) ফোনে কেন্দ্রীয়

 

ঈদগাহে আসতে বলেন। মামা সেলিমের ফোন পেয়ে রাহাদ মৃধা তার ভাই ফরহাদ মৃধা ও বন্ধু বেলাল হোসেন বাপ্পি ঈদগাহে যান। সেখানে পূর্বে থেকেই ওঁৎ পেতে থাকা কিশোর গ্যাং লিডার শাহাবুদ্দিন শিহাব, ইমরান মোল্লা, নোমান মোল্লা, মিরাজুল ইসলাম মিরাজ ও মেহেদিসহ ১০-১২ জন অজ্ঞাত ছাত্রলীগ নেতা রাহাত, তার ভাই ফরহাদ, মামা সেলিম, বন্ধু বেলাল হোসেন বাপ্পি ও রাহাতের খালুকে চাপাতি, হাতুড়ি ও রামদা দিয়ে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে গুরুতর

 

আহত করেন। সংবাদ পেয়ে পৌর কাউন্সিলর রিয়াজ উদ্দিন মৃধা ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় রাহাত মৃধা ও তার ভাই ফরহাদ মৃধাসহ আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন। আহত ছাত্রলীগ নেতা রাহাত মৃধা জানায়, কিশোর গ্যাং লিডার শাহাবুদ্দিন শিহাবের নেতৃত্বে কিশোর সন্ত্রাসী ইমরান, নোমান, মিরাজুল ইসলাম মিরাজ ও মেহেদিসহ ১০-১২ জন আমাকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়েছে এবং হাতুড়ি দিয়ে আমার ভাইকে

 

 

পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। তিনি আরও বলেন, আমাদের রক্ষায় আমার মামা সেলিম, খালু এগিয়ে আসলে তাদেরকেও মারধর করা হয়েছে। আহত মামা সেলিম বলেন, আমি বিষয়টি জেনে মিমাংসার জন্য আমার ভাগিনা রাহাতকে ঈদগাহ মাঠে আসতে বলি। এসময় কিশোর গ্যাং লিডার শাহাবুদ্দিন শিহাবের নেতৃতে ১০-১২ জন সন্ত্রাসীরা আমার ভাগিনা রাহতকে কুপিয়ে ও আমাদের পিটিয়ে আহত করে। এ বিষয়ে কিশোর গ্যাং লিডার শাহাবুদ্দিন শিহাব

 

 

বলেন, নিজেদের মধ্যে একটু ঝামেলা হয়েছে। পৌরসভার কাউন্সিলর মো. রিয়াজ উদ্দিন মৃধা বলেন, সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে রাহাতসহ অপর আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করি। তিনি আরও বলেন, কিশোর গ্যাং লিডার শাহাবুদ্দিন শিহাবসহ তার সাঙ্গ-পাঙ্গদের অত্যাচারে সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ। দ্রুত এদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া দরকার। আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ সংবাদ
copyright protected
%d bloggers like this: